হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি | পরিচিতি | স্টপেজ | সুবিধা | টিকিটমূল্য
Skip to content
হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি | পরিচিতি | স্টপেজ | সুবিধা | টিকিটমূল্য

হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি | পরিচিতি | স্টপেজ | সুবিধা | টিকিটমূল্য

হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি

ট্রেনে চড়তে কার না ভালো লাগে! যাদের ভালো লাগার ব্যাপারটি এখনো তৈরি হয়নি, তারাও একসময় এই ট্রেন ভ্রমণের প্রেমে পড়ে যায়। তবে এক্ষেত্রে দরকার প্রেমে পড়বার মতো একটি মানসম্মত ট্রেন এবং এর সুযোগ-সুবিধা। ঠিক তেমনই একটি এক্সেপশনাল ট্রেন নিয়ে আজ আমরা বিস্তারিত আলোচনা করবো।

আমাদের আজকের আলোচনার মূল বিষয় হলো হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি সহ এই ট্রেনটি সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্যাদি। সুতরাং যারা ট্রেনটি সম্পর্কে জানতে আগ্রহী আমাদের সাথেই থাকুন। 

haor express train schedule – হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি

হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের পরিচিতি

বাংলাদেশের ৭৭৭/৭৭৮ নং ট্রেন হিসেবে এই হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের পরিচিতি দেখার মতো। যদিও এটি পূর্বাঞ্চলের রেলওয়ে কতৃপক্ষের অন্তর্ভুক্ত একটি আন্তঃনগর ট্রেন। যাত্রাপথে ট্রেনটি সর্বোচ্চ ১১ টি স্টপেজ অতিক্রম করে যায়। এক্ষেত্রে ট্রেনটি নিয়মিত সার্ভিস টাইম হিসেবে ব্যায় করে ৬ ঘন্টার মতো। এই ৬ ঘন্টায় যানবাহনটি সর্বমোট ২১০ কিলোমিটার বা ১৩০ মাইল পথ অতিক্রম করে থাকে। 

হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের বন্ধের দিন হিসেবে কতৃপক্ষ সপ্তাহের ১ দিনকে সিলেক্ট করেছে। বাকি ৬ দিন একই নিয়ে এর বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে থাকে। ট্রেনটির যাত্রা শুরু হয় ঢাকা কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে এবং তা শেষ হয় একেবারে মোহনগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছে। সুতরাং যাদের সপ্তাহের ৬ দিনই এই রুটে আসা-যাওয়া করবার দরকার পড়ে তারা এই হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সার্ভিস গ্রহণ করতে পারেন। 

বলে রাখা ভালো হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের কার্যক্রম কিন্তু আন্তঃনগর ট্রেন সার্ভিস পর্যন্তই সীমাবদ্ধ। তবে এই সীমাবদ্ধতাকে ডিঙিয়েও ট্রেনটি বেশ ভালো সার্ভিসই প্রদান করে আসছে। যাত্রীদের সুবিধার্থে ট্রেনটি যেমন খাদ্য সুবিধার ব্যবস্থা করেছে, ঠিক তেমনই ব্যবস্থা করেছে বিনোদন সুবিধা। সাথে রয়েছে সঠিক আসন বিন্যাস এবং যাত্রীদের জন্যে আরামদায়ক ঘুমের ব্যবস্থা। যাদের জার্নি করতে করতে ঘুমিয়ে যাওয়ার অভ্যাস রয়েছে তারা চাইলে হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনকে পছন্দের কিংবা জার্নি লিষ্টে রাখতে পারেন। 

হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের ইতিহাস

মূলত হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের ইতিহাস সম্পর্কে যদি বলি তবে বলবো ট্রেনটি তার প্রথম সার্ভিস গ্রাহকদের উদ্দেশ্যে প্রদান করেছিলো আজ থেকে প্রায় ৯ বছর আগে অর্থ্যাৎ ৩০ জুলাই ২০১৩ তারিখে। সেই দিনই ট্রেনটির উদ্ভোদন কার্যক্রম পরিচালিত হয়। পাশাপাশি প্রথম সার্ভিস হিসেবে সেদিনি ট্রেনটির পরীক্ষামূলক পরিবহন ক্ষমতা চেক করা হয়। যদিও এর আগে থেকেই এই ঢাকা টু মোহনগঞ্জ রুটে আরো একটি ট্রেন চলাচল করতো এবং এখনো করে। ট্রেনটির নাম হলো মোহনগঞ্জ ট্রেন। তবে সার্ভিসের কোয়ালিটির দিক দিয়ে কোনোটইই কোনোটির চাইতে কম নয়। 

হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি

চলে এলাম আর্টিকেলের মূল অংশ অর্থ্যাৎ হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি সম্পর্কিত অংশে। হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি সম্পর্কে জানতে নিচের পয়েন্টগুলিতে ফোকাস করুন। 

  • হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের ঢাকা কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন টু মোহনগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনের যাত্রা শুরু হয় ২২ঃ১৫ মিনিটে এবং তা শেষ হয় ০৪ঃ৪০ মিনিটে। 
  • আবার মোহনগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন টু ঢাকা কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের যাত্রা ০৮ঃ০০ মিনিটে শুরু হয়ে তা শেষ করা হয় ১৩ঃ৫০ মিনিটে। 

বলে রাখা ভালো হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের এই পুরো পরিবহন সার্ভিসটি দিনের শুরুতে ঢাকা কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন দ্বারাই শুরু করা হয়। 

হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের স্টপেজ

আমাদের আজকের আলোচিত এই ট্রেনের সময়সূচি সম্পর্কে তো জানলেন। এক্ষেত্রে এই সময়সূচি সরাসরি ঢাকা টু মোহনগঞ্জ কিংবা মোহনগঞ্জ টু ঢাকা রুটে চলাচল করবেন তাদের কিছুটা হলেও উপকৃত করবে। তবে যারা এই যাত্রার বিভিন্ন স্টপেজে থামতে চান কিংবা নামতে চান তাদের উচিত হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের স্টপেজ সম্পর্কে ধারণা রাখা। আগেই বলেছি এই ট্রেনের সর্বমোট ১১ টি স্টপেজ রয়েছে। লুন এ-সম্পর্কে এবারে জেনে নেওয়া যাক। 

  • বিমান বন্দর রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনটি ঢাকা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ২২ঃ৪২ মিনিটে এবং মোহনগঞ্জ থেকে ফিরে আসাকালীন সময়ে থামে ১৩ঃ০৫ মিনিটে
  • জয়দেবপুর রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনটি ঢাকা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ২৩ঃ১২ মিনিটে এবং মোহনগঞ্জ থেকে ফিরে আসাকালীন সময়ে থামে ১২ঃ৪০ মিনিটে
  • গফরগাঁও রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনটি ঢাকা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০০ঃ২০ মিনিটে এবং মোহনগঞ্জ থেকে ফিরে আসাকালীন সময়ে থামে ১১ঃ২২ মিনিটে
  • ময়মনসিংহ রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনটি ঢাকা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০১ঃ১৫ মিনিটে এবং মোহনগঞ্জ থেকে ফিরে আসাকালীন সময়ে থামে ১০ঃ১৮ মিনিটে
  • গৌরীপুর রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনটি ঢাকা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০২ঃ১৮ মিনিটে এবং মোহনগঞ্জ থেকে ফিরে আসাকালীন সময়ে থামে ০৯ঃ৪২ মিনিটে
  • শ্যামগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনটি ঢাকা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০২ঃ৩৮ মিনিটে এবং মোহনগঞ্জ থেকে ফিরে আসাকালীন সময়ে থামে ০৯ঃ২৫ মিনিটে
  • নেত্রকোনা রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনটি ঢাকা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৩ঃ০৫ মিনিটে এবং মোহনগঞ্জ থেকে ফিরে আসাকালীন সময়ে থামে ০৮ঃ৫২ মিনিটে 
  • ঠাকুরাকোণা রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনটি ঢাকা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৩ঃ২৫ মিনিটে এবং মোহনগঞ্জ থেকে ফিরে আসাকালীন সময়ে থামে ০৮ঃ৩০ মিনিটে 
  • বারহাট্টা রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেনটি ঢাকা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৩ঃ৪০ মিনিটে এবং মোহনগঞ্জ থেকে ফিরে আসাকালীন সময়ে থামে ০৮ঃ১৬ মিনিটে 

হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সুবিধা 

আশা আর্টিকেলে এই অংশে আলোচিত হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সুবিধাগুলি আপনাকে হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সার্ভিস গ্রহণ করতে আরো আগ্রহী করে তুলবে। 

  • কোয়ালিটিফুল খাবার সার্ভিংয়ের ব্যবস্থা
  • লিমিটেড বাজেটে ভালো সিটের কেনার সুবিধা 
  • পারফেক্ট আসন-বিন্যাস উপভোগ 
  • ঘুমানোর জন্য রয়েছে সু-ব্যবস্থা
  • বিনোদন উপভোগে জন্যে করা হয়েছে উপযুক্ত আয়োজন 

হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিটমূল্য

  • ট্রেনটির শোভন সিটের দাম মাত্র ১৮৫ টাকা
  • এসি স্নিগ্ধা সিটের দাম ৪২৬ টাকা
  • প্রতিটি প্রথম বার্থ সিটের দাম ৪৯০ টাকা
  • শোভন চেয়ারের দাম ২২০ টাকা করে

ইতি কথা

হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি সম্পর্কিত সঠিক তথ্যের পাশাপাশি এই ট্রেনটির প্রাইমারি লেভেল থেকে শুরু করে এডভান্স লেভেল পর্যন্ত সকল তথ্য শেয়ার করার চেষ্টা করেছি। আশা করি পরবর্তী ট্রেন ভ্রমণের সঙ্গী হিসেবে এই হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনটিকে বেছে নিতে আরকোনো দোটানায় ভুগতে হবে না। ধন্যবাদ সবাইকে। হ্যাপি ট্রেন জার্নি! 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *