" " জেনে নিন কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি | পরিচিত | লোকেশন | স্টপেজ | সময়সূচি এবং টিকিট মূল্য!
" " "
"
ট্রেনের সময়সূচী

জেনে নিন কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি | পরিচিত | লোকেশন | স্টপেজ | সময়সূচি এবং টিকিট মূল্য!

" " "
"

আপনি কি খুলনা এবং রাজশাহী শহরের মাঝামাঝি অঞ্চলগুলিতে থাকা রুটগুলিতে নিয়মিত বা অনিয়মিতভাবে যাতায়াত করে থাকেন? সেক্ষেত্রে চাইলে গাড়ি, বাস কিংবা সিএনজির পরিবর্তে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সার্ভিস গ্রহণ করতে পারেন। চলুন তবে আজ কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি, পরিচিতি, টিকিট প্রাইজসহ অন্যান্য তথ্য সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। আলোচনা করা যাক কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের জানা-অজানা সকল তথ্য সম্পর্কে। 

" " "
"

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের পরিচিতি

ট্রেন নং ৭১৫/৭১৬ বা কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেন হলো বাংলাদেশ আন্তঃনগর রুটগুলিতে সার্ভিস দিয়ে আসা জনপ্রিয় একটি ট্রেন পরিষেবা। বিশেষ করে খুলনা এবং রাজশাহী শহরের মাঝামাঝি অঞ্চলগুলিতে থাকা রুটগুলিতে এই ট্রেনটি সার্ভিস দিয়ে থাকে। ট্রেনটির অফিসিয়াল যাত্রা শুরু হয়েছিলো ০১ মে, ১৯৮৬ তারিখে। তাপানুকূল চেয়ার এবং শোভন চেয়ারের মতো জনপ্রিয় ক্যাটাগরির সিট থাকায় অনেকেই এই ট্রেনের সার্ভিস গ্রহণের ক্ষেত্রে মুখিয়ে থাকে। 

" " "
"

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের কার্যক্রম

এবার চলুন কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি সম্পর্কে বিস্তারিত জানার আগে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের কার্যক্রম সম্পর্কে টুকটাক তথ্য আলোচনা করা যাক। এতে করে ট্রেনটির সার্ভিস গ্রহণে সিদ্ধান্ত নিতে পারার ক্ষেত্রে প্লাস পয়েন্ট যোগ হবে। 

মূলত কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের কাজ হলো নির্ধারিত রুটগুলিতে নিয়মিত অর্থ্যাৎ সপ্তাহের প্রতিটি দিনই সার্ভিস দিয়ে থাকে। হিসেব করলে দেখা যায় নদীর নামে জনপ্রিয় এই ট্রেনটি নিয়মিত ৫ ঘণ্টা ২৫ মিনিটের সার্ভিস প্রদান করে থাকে। আর এই সময়টুকুতে ট্রেনটি প্রায় ২৬৩.২ কিমি বা ১৬৩.৫ মাইল পথ অতিক্রম করে থাকে। 

" " "
"

আপনার মনে হয়তো কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের মালিক বা পরিচালক সম্পর্কে কোনো প্রশ্ন জেগে উঠতে পারে। এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো বর্তমানে ট্রেনটির পরিচালনার দায়িত্বে আছে পশ্চিমাঞ্চল। এই অঞ্চলের ট্রেন পরিষেবা কতৃপক্ষের আন্ডারে ট্রেনটি প্রায় ১৩টি স্টপেজ পার করে থাকে। এই যাত্রাটুকু খুলনা থেকে শুরু হয়ে একেবারে রাজশাহীর রুটগুলিতে পর্যন্ত পরিচালিত হয়। 

১৯৮৬ সালের ১লা মে! সময়টা বাংলাদেশ ট্রেন পরিষেবা কতৃপক্ষের জন্যে ছিলো বিশেষ খুশির দিন। কারণ এই দিনেই উদ্ভোদন করা হয় বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় ট্রেন কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনকে। তবে ১৯৮৮ সালের দিকে ট্রেনটির কার্যক্রমে ভাটা পড়ে। সোজা বাংলায় তা পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। যদিও সকল পরিস্থিতি মোকাবিলা করে বর্তমানে বেশ সাফল্যের সাথেই সার্ভিস প্রদান করছে এই ট্রেনটি। সুতরাং যারা এই জনপ্রিয় ট্রেনের সার্ভিস নিতে চান তারা কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আমাদের সাথেই থাকুন। 

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের লোকেশন

এবার আসি কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের লোকেশন অর্থ্যাৎ ট্রেনটি কোথায় অবস্থান করছে বর্তমানে সে-সম্পর্কে। মূলত এটি পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছে পশ্চিমাঞ্চলের কতৃপক্ষ। লজিক অনুযায়ী সেখানেই অবস্থান করছে ট্রেনটি। যাত্রা শুরু করার ক্ষেত্রে খুলনা রেলওয়ে স্টেশন থেকেই কার্যক্রম শুরু হয়। খুলনা থেকে রাজশাহী এবং ফিরতি যাতায়াতে রাজশাহী থেকে পূনরায় খুলনায় যাত্রী পরিবহন করে থাকে এই কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনটি। পথিমধ্যে ঠিক কোন কোন স্টপেজে ট্রেনটি থামে এবং কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি সম্পর্কে জানতে আমাদের সাথেই থাকুন। 

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের স্টপেজ এবং সময়সূচি

আপনি যদি কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সার্ভিস গ্রহণে ইচ্ছুক হয়ে থাকেন, সেক্ষেত্রে শুরুতেই আপনাকে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি এবং স্টপেজ সম্পর্কিত তথ্য জেনে রাখতে হবে। তবে আর দেরি করছি কেনো? চলুন স্টপেজগুলি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। 

" " "
"
  • নওয়াপাড়া রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৬ঃ৪৭ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৯ঃ১৮ মিনিটে 
  • যশোর রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৭ঃ২৩ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৮ঃ৪৬ মিনিটে
  • মোবারকগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৭ঃ৫৪ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৮ঃ১৭ মিনিটে
  • কোটচাঁদপুর রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৮ঃ০৭ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৭ঃ৫৩ মিনিটে
  • দর্শনা রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৮ঃ৩২ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৭ঃ২৬ মিনিটে 
  • চুয়াডাঙ্গা রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৮ঃ৫৯ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৭ঃ০০ মিনিটে 
  • আলমডাঙ্গা রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৯ঃ২০ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৬ঃ৪৩ মিনিটে
  • পোড়াদহ রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৯ঃ৩৭ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৬ঃ২৬ মিনিটে 
  • মিরপুর রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ০৯ঃ৫০ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৬ঃ১৩ মিনিটে
  • ভেড়ামারা রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ১০ঃ০৩ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৬ঃ০০ মিনিটে 
  • পাকশী রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ১০ঃ১৮ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৫ঃ৪৬ মিনিটে 
  • ঈশ্বরদী রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ১০ঃ৩৫ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৫ঃ২০ মিনিটে 
  • আজিম নগর রেলওয়ে স্টেশনে খুলনা থেকে আসাকালীন সময়ে থামে ১১ঃ০৭ মিনিটে এবং রাজশাহী থেকে থামে ১৫ঃ০১

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সিট এবং টিকিট ভাড়া

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি হিসাবে স্টপেজগুলির সময়সূচি সম্পর্কে তো জানলেন! এবারে চলুন কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট প্রাইজ সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। যদিও এই প্রাইজ সম্পূর্ণ ভ্রমণের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। আর যারা বিভিন্ন সিঙ্গেল রুটে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সার্ভিস গ্রহণ করতে চান তাদের রুট অনুযায়ী স্টপেজ হিসাবে করে ভাড়া পে করতে হবে। তাছাড়া আমরা বর্তমানে যে প্রাইজ রেইঞ্জ সম্পর্কে আলোচনা করবো সেই প্রাইজ রেইঞ্জের সাথে ১৫% ভ্যাট ইতিমধ্যেই যোগ করা হয়েছে। যার ফলে কোনো যাত্রীকেই আলাদা করে এই ভ্যাট পরিশোধ করতে হবে না। এছাড়াও কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট কেনার ক্ষেত্রে আপনি চাইলে অনলাইন প্ল্যাটফর্মের সাহায্য নিতে পারেন। প্রাইজ লিষ্টটি নিচে শেয়ার করা হলো: 

  • শোভন সিটের প্রাইজ ২৬০ টাকা
  • শোভন চেয়ার সিটের প্রাইজ ৩১০  টাকা
  • প্রথম সিটের প্রাইজ ৪১০  টাকা
  • স্নিগ্ধা সিটের প্রাইজ ৫১৫ টাকা
  • এসি সিটের প্রাইজ ৬১৫ টাকা

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি 

চলে এলাম আর্টিকেলের মূল অংশ অর্থ্যাৎ কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি সম্পর্কিত তথ্য দ্বারা সাজানো অংশে। মূলত এই ট্রেন রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন থেকে খুলনা রেলওয়ে স্টেশনের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে দুপুর ২.১৫ মিনিট থেকে এবং সেই যাত্রা শেষ হয় রাত ৮.১০ মিনিটে। অন্যদিকে খুলনা রেলওয়ে স্টেশন থেকে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে ব্যাক করার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে সন্ধ্যায় ৬.১৫ মিনিটে এবং খুলনাতে গিয়ে পৌঁছায় দুপুর ১২.০০ মিনিটে। পাশাপাশি এই যাত্রাপথে কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেন বেশকিছু স্টপেজে থামে। যার ঠিকানা এবং সময়সূচি সম্পর্কে আমরা ইতিমধ্যেই আলোচনা করেছি। 

কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের বন্ধের দিন

এবার আসি কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের বন্ধের দিনের ব্যাপারে। মূলত ট্রেনটির সম্পূর্ণ কার্যক্রম সপ্তাহে ১ দিন অর্থ্যাৎ শনিবারে অফ থাকে। এক্ষেত্রে এই অফ থাকার নিয়মটি রাজশাহী টু খুলনা এবং খুলনা টু রাজশাহী উভয় রুটের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। 

ইতি কথা

আশা করি আমাদের আজকের আর্টিকেলে শেয়ার করা কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি সম্পর্কিত তথ্য এবং অন্যান্য পয়েন্টগুলি আপনাকে কিছুটা হলেও উপকৃত করবে। মনে রাখবেন ট্রেন ভ্রমণে ট্রেন কতৃপক্ষ সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করলেও সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে আপনাকে নিজের নিরাপত্তা নিয়ে নিজেরই সচেতন হতে হবে। বিশেষ করে জানালার পাশে ভ্রমণকারী যাত্রী বাইরে ফোন বা ক্যামেরা বের করে ছবি তোলা থেকে বিরত থাকার চেষ্টা করবেন। আজ এতোটুকুই। আপনার নিরাপদ যাতায়াতই আমাদের কাম্য। 

" " "
"

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

" " "
"